রাজনৈতিক বিজ্ঞাপন চালিয়ে যাবে ফেসবুক

42
রাজনৈতিক বিজ্ঞাপন ফেসবুক

রাজনৈতিক বিজ্ঞাপন বন্ধ করবেনা বলে ঘোষণা দিয়েছে ফেসবুক। নির্বাচনী প্রচারণায় বিজ্ঞাপন প্রচার নিয়ে তুমুল সমালোচনার মুখে পড়লেও তা চালিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্তে অনড় রয়েছে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ।

২০১৬ সালে আমেরিকার প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিজ্ঞাপন প্রচার করেছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক। এ নিয়ে তুমুল সমালোচনার মুখে পড়ে জনপ্রিয় এই সোশ্যাল মিডিয়া প্লাটফর্মটি। ফেসবুকের বর্তমান বিজ্ঞাপন নীতিমালা ঐ নির্বাচনের সময় থেকেই বিতর্কিত হয়ে আসছে। রাজনীতিবিদদের মিথ্যা ও ভুয়া তথ্য সম্বলিত বিজ্ঞাপন বন্ধের দাবি উঠলেও ফেসবুক তাতে অস্বীকৃতি জানিয়েছে। অনেকেই মনে করেন, ডোনাল্ড ট্রাম্প মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হতে ফেসবুক বিশেষভাবে প্রভাবিত করেছে ভোটারদের। তাই আসন্ন মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনকে ঘিরে এ ধরনের ভুয়া বিজ্ঞাপন প্রচারের সুবিধা নিতে সরব ডেমোক্র্যাটরাও।

রাজনৈতিক বিজ্ঞাপন নিয়ে ফেসবুক তাঁদের অনড় অবস্থানে থেকে বলছে, যেকোন রাজনৈতিক ব্যক্তি বা দল অর্থ ব্যয়ের মাধ্যমে খুশিমতো প্রচার চালাতে পারবেন তাঁদের প্লাটফর্মে। তবে সমালোচনার মুখে এ ধরনের বিজ্ঞাপন বন্ধে অস্বীকৃতি জানালেও ফেসবুক কর্তৃপক্ষ বলছে, ব্যবহারকারী কী ধরনের বিজ্ঞাপন দেখতে চান, তা ঠিক করে নেওয়ার সুযোগ থাকবে।

এদিকে, বিজ্ঞাপনদাতাদের সুবিধার্থে আরও নতুন ফিচার আনার ঘোষণা দিয়েছে ফেসবুক। এ বছরের প্রথম প্রান্তিকেই এসব ফিচার যুক্ত হবে বলেও জানিয়েছে তাঁরা। নতুন ফিচারের মাধ্যমে রাজনীতিবিদেরা কোন বিজ্ঞাপন চালাচ্ছেন, তা দেখা যাবে। কোন বিজ্ঞাপন দিয়ে বিজ্ঞাপনদাতা কতজনের কাছে পৌঁছাতে চান, তাও দেখা যাবে। এতে সার্চ ও ফিল্টারিং টুলও থাকবে।

রাজনৈতিক বিজ্ঞাপন প্রচারের বিষয়ে গত বছরের অক্টোবরে ফেসবুকের সিইও মার্ক জাকারবার্গ বলেন:

“আমার মনে হয় না কোনো বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের পক্ষে রাজনীতিবিদদের বক্তব্য সেন্সর করা ঠিক হবে। রাজনৈতিক বিজ্ঞাপন বাকস্বাধীনতার গুরুত্বপূর্ণ অংশ বিশেষ করে স্থানীয় প্রতিযোগী ও উদীয়মান নেতাদের জন্য এটি কার্যকর।”

উল্লেখ্য যে, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে রাজনৈতিক বিজ্ঞাপনের যৌক্তিকতা নিয়ে প্রশ্ন উঠলে আরেক জনপ্রিয় সোশ্যাল মিডিয়া প্লাটফর্ম টুইটার পুরোপুরি রাজনৈতিক বিজ্ঞাপন দেখানো বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নেয়। গুগলের পক্ষ থেকেও রাজনৈতিক বিজ্ঞাপনের ব্যাপারে কড়াকড়ি নীতিমালা জারি করা হয়। কিন্ত এ নিয়ে অনড় অবস্থানে থাকার স্পষ্ট ঘোষণা দিল ফেসবুক কর্তৃপক্ষ।

আপনার মতামত দিন

দয়া করে আপনার মতামতটি লিখুন
দয়া করে আপনার নামটি লিখুন